হাইলাইট
।।ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি।।কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর।।চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান।।সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন।।এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়।।প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো।।ভাজপা প্রার্থী হিরণের ডক্টরেট ডিগ্রি জাল।।বিজেপির দিকে ভোট সুইং হবে না, মোদিকে চ্যালেঞ্জ, দম থাকলে আমার সঙ্গে মুখোমুখি বিতর্ক সভায় বসুন।।থেকে যাওনা গো।।মমতার তরুণ তুর্কি দেবাংশু নীল ঘোড়ায়।।সর্বত্র ভাজপা হারছে, না হলে বলে জগন্নাথদেবও মোদির ভক্ত।।বিজেপির একটা বুথে মদ খাওয়ার খরচ ৫০০০ টাকা।।৬ মাসের মধ্যে শুরু হবে ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কাজ।।পুরুলিয়ায় মোদির মঞ্চে ভারত সেবাশ্রমের সাধু।।১ মের বদলে ১ এপ্রিল থেকে ডিএ দেওয়ার সিদ্ধান্ত
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি

ভোটের শেষ লগ্নে মোদিবাবুর মত, গান্ধি সিনেমা তোলা না হলে সারা বিশ্ব গান্ধির নামও জানত না ৩৬৫ দিন। ১০ অগাস্ট ২০০৭ : দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর

রাজ্যসঙ্গীত গাইতে গিয়ে পদে পদে হোচট খেলেন মোদী ৩৬৫দিন। কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী রায়কে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর। মঙ্গলবার সপ্তম দফার নির্বাচনের প্রচারে বাংলায় এসে তৃণমূল বিরোধী

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান

মোদির স্বৈরতান্ত্রিকত আচরণের বিরুদ্ধে মমতার গর্জন ৩৬৫ দিন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লাঞ্চের খরচ প্রায় চার লক্ষ টাকা। উনি যে ব্যাঙের ছাতা বা মাশরুম খান সেটি

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন

এবার ঘোমটার আড়ালে ভাজপার খ্যামটা নাচ,নিউজ মিডিয়া ছেড়ে সোশাল মিডিয়ায় বিপুল টাকা ঢেলে ৩৬৫ দিন। মোদী হ্যায় তো মুমকিন হ্যায়! তার জেরে জাতীয় নির্বাচন কমিশন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়

গৌতম ঘোষের ধিক্কার গৌতম ঘোষ। ৩৬৫ দিন। সত্যজিৎ রায়ের হীরক রাজার দেশে ছবিকে ,তার সংলাপকে, সেটকে এবং চরিত্রদের বিকৃত করে যে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বিজেপি নির্মাণ

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো

মমতার গর্জন, বিজ্ঞাপনেও লিখছে প্রধানমন্ত্রীর রোড শো ৩৬৫ দিন। আগামীকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির রোড শো উত্তর কলকাতায়। নির্বাচন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রীর ব্যাচ লাগিয়ে এই রোড

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

হাইকোর্টের রায়ে রন্ধ্রে রন্ধ্রে বিজেপির স্ট্যাম্প

বিস্ফোরক অভিষেক, এতদিন ম্যাচ ফিক্সিং শুনেছি এখন কোর্ট ফিক্সিং হচ্ছে

 

৩৬৫ দিন। এতদিন আমরা ম্যাচ ফিক্সিং, বেটিংয়ের কথা শুনেছি। এখন অর্ডার ফিক্সিং, কোর্ট ফিক্সিং হচ্ছে! বেটিংয়ে নয়া মাত্রা যোগ করছে কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারকের আসনে থাকা কিছু বিচারপতি বিজেপির যোগসাজশে তাঁদের কথা মতো রায় দিচ্ছে। এখন সেটা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার। এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবাংশু বসাকের ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যের প্রায় ২৬০০০ চাকুরিরতের চাকরি খ ারিজ করার নির্দেশের প্রেক্ষিতে এভাবেই কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিদের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ পুরুলিয়ায় নির্বাচনী জনসভার পরে অভিষেক এসএসসি মামলায় কিভাবে ভাজপা নেতাদের কথা এর রায় দিয়েছেন বিচারপতিরা তার ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, এই রায়ের রন্ধ্রে রন্ধ্রে বিজেপির ছাপ রয়েছে। যা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক, ভূ-ভারতের ইতিহাসে এমন রায় নেই। আদালতের যুক্তি ধরে নিলে তো কলকাতা হাইকোর্টও তুলে দিতে হবে! কিছু অযোগ্যর জন্য হাজার হাজার যোগ্যকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা যদি ঠিক কাজ হয়, তাহলে হাইকোর্টের যুক্তি ধরেই বলতে হয়, কলকাতা হাইকোর্টের সব বিচারপতি তাহলে বিজেপি! কলকাতা হাইকোর্টটাকেই তুলে দেওয়া উচিত। কলকাতা হাইকোর্টের সমস্ত বিচারপতিকে কেন ভাজপা নেতা বলে অভিষেক আক্রমণ করেছেন তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন নিজেই। এই প্রসঙ্গে অভিষেক বলেন, অভিষেক আরও বলেন, ১০০০-১৫০০ প্যানেলের বাইরে চাকরি পেলেও পুরো প্যানেল বাদ। তাহলে আদালতের যুক্তি মেনে যদি বলা হয়, ওই বিচারপতি বিজেপি-তে গিয়ে থাকলে বাকি বিচারপতিরাও বিজেপি! আমি তা বলছি না। কিন্তু আপনাদের যুক্তি ধরলে তো তাই হয়! বিচারপতি বলেছেন, সব চাকরি বাতিল। তার দু’দিন আগে বিজেপি-র নেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন সপ্তাহের শুরুতে বিস্ফোরণ ঘটবে। সোমবার ওই রায় এল। এটা কি কাকতালীয়? সাধারণ মানুষের কাছে শুধু এই প্রশ্ন তুলছি। ২৫ হাজার যোগ্য লোকের চাকরি কেড়ে নিল আদালত। আদালতের তর্কই যদি ধরি, সেক্ষেত্রে একজন বিচারপতি, বিচারপতি থাকাকালীনই বলেছেন, তিনি বিজেপি-কে অ্যাপ্রোচ করেন, বিজেপি-ও তাঁকে অ্যাপ্রোচ করে। অর্থাৎ বিজেপি-র সঙ্গে যোগাযোগে ছিলেন উনি। সেই বিচারপতি যদি বিজেপি-তে যান, তাহলে ভারত থেকে কলকাতা হাইকোর্টটাকেই তুলে দেওয়া উচিত! তবে এর পাশাপাশি কলকাতা হাইকোর্টের রায় প্রায় ২৬ হাজার চাকরিহারাদের উদ্দেশ্যে অভিষেক বলেন, ওরা প্রতিশোধ নিয়েছে। আপনারা ভেঙে পড়বেন না। যোগ্য চাকরিহারাদের পাশে সরকার ছিল, এখনও আছে। এর পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারী যেমন গত সপ্তাহে প্রকাশ্যে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন চলতি সপ্তাহের প্রথমেই বোমা ফাটবে এবং তারপরেই কলকাতা হাইকোর্ট ২৬ হাজার শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মীর চাকরি বাতিল করেছে সেই ঘটনার রেস টেনে বাঁকুড়ার ওন্দার ভাজপা বিধায়ক অমরনাথ শাখাও ফের চাকরি নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। সামনের ৩০ এপ্রিল আরও ৫৯ হাজার চাকরি যাবে বলে ঘোষণা করেছেন তিনি। সেই নিয়ে অভিষেকের বক্তব্য, অমর শাখা বলেছেন, এই তো সবে শুরু। ৩০ তারিখের মধ্যে আরও ৫৯ হাজার চাকরি যাবে। যাঁদের চাকরি গিয়েছে, তাঁদের অনুরোধ করব, আপনারা বিব্রত, বিরত হবেন না। দলগত ভাবে তৃণমূল সর্বশক্তি দিয়ে আপনাদের পাশে আছে, থাকবে। কারও চাকরি যেতে দেব না আমরা। বিশেষ করে যাঁরা মেধাযুক্ত, যাঁদের চাকরির প্রয়োজন, কষ্ট করে মেধার ভিত্তিতে চাকরি পেয়েছেন, আজ প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য। এই যে কোর্টের রায়, তার রন্ধ্রে রন্ধ্রে বিজেপি-র স্ট্যাম্প।

Scroll to Top