হাইলাইট
।।ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি।।কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর।।চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান।।সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন।।এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়।।প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো।।ভাজপা প্রার্থী হিরণের ডক্টরেট ডিগ্রি জাল।।বিজেপির দিকে ভোট সুইং হবে না, মোদিকে চ্যালেঞ্জ, দম থাকলে আমার সঙ্গে মুখোমুখি বিতর্ক সভায় বসুন।।থেকে যাওনা গো।।মমতার তরুণ তুর্কি দেবাংশু নীল ঘোড়ায়।।সর্বত্র ভাজপা হারছে, না হলে বলে জগন্নাথদেবও মোদির ভক্ত।।বিজেপির একটা বুথে মদ খাওয়ার খরচ ৫০০০ টাকা।।৬ মাসের মধ্যে শুরু হবে ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কাজ।।পুরুলিয়ায় মোদির মঞ্চে ভারত সেবাশ্রমের সাধু।।১ মের বদলে ১ এপ্রিল থেকে ডিএ দেওয়ার সিদ্ধান্ত
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি

ভোটের শেষ লগ্নে মোদিবাবুর মত, গান্ধি সিনেমা তোলা না হলে সারা বিশ্ব গান্ধির নামও জানত না ৩৬৫ দিন। ১০ অগাস্ট ২০০৭ : দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর

রাজ্যসঙ্গীত গাইতে গিয়ে পদে পদে হোচট খেলেন মোদী ৩৬৫দিন। কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী রায়কে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর। মঙ্গলবার সপ্তম দফার নির্বাচনের প্রচারে বাংলায় এসে তৃণমূল বিরোধী

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান

মোদির স্বৈরতান্ত্রিকত আচরণের বিরুদ্ধে মমতার গর্জন ৩৬৫ দিন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লাঞ্চের খরচ প্রায় চার লক্ষ টাকা। উনি যে ব্যাঙের ছাতা বা মাশরুম খান সেটি

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন

এবার ঘোমটার আড়ালে ভাজপার খ্যামটা নাচ,নিউজ মিডিয়া ছেড়ে সোশাল মিডিয়ায় বিপুল টাকা ঢেলে ৩৬৫ দিন। মোদী হ্যায় তো মুমকিন হ্যায়! তার জেরে জাতীয় নির্বাচন কমিশন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়

গৌতম ঘোষের ধিক্কার গৌতম ঘোষ। ৩৬৫ দিন। সত্যজিৎ রায়ের হীরক রাজার দেশে ছবিকে ,তার সংলাপকে, সেটকে এবং চরিত্রদের বিকৃত করে যে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বিজেপি নির্মাণ

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো

মমতার গর্জন, বিজ্ঞাপনেও লিখছে প্রধানমন্ত্রীর রোড শো ৩৬৫ দিন। আগামীকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির রোড শো উত্তর কলকাতায়। নির্বাচন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রীর ব্যাচ লাগিয়ে এই রোড

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

400 পারের গল্প দিচ্ছে! 200 তে গাড়ি আটকে যাবে

ডায়মন্ড হারবারের সভায় অভিষেকের গর্জন


৩৬৫ দিন।
৪০০ পারের গল্প দিচ্ছে তো, ২০০য় গাড়ি আটকে যাবে। ৪ তারিখ ১০ বছর পর পরিবর্তনের যে সরকার তৈরি হবে, সেখানে অগ্রণী ভূমিকা নেবে তৃণমূল ও বাংলার মানুষ। মানুষ ভোট দেবে, ইডি সিবিআই তো ভোট দেবে না। এভাবেই আজ ভাজপার ৪০০ আসনের হুংকারের পাশাপাশি বিরোধীদের বিরুদ্ধে এজেন্সি রাজনীতির কথা তুলে ধরে তীব্র আক্রমণ শোনালেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্র থেকে অভিষেকের বিরুদ্ধে প্রার্থী দিতে সরাসরি কেন্দ্রীয় এজেন্সির ডিরেক্টরদের নামানোর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে অভিষেক বলেন, আমি তো বলেছিলাম এত রাগ যখন আমার বিরুদ্ধে, তাহলে ইডি সিবিআইয়ের ডিরেক্টরকে ডায়মন্ড হারবার থেকে দাঁড় করান। মেঘনাদ না হয়ে সম্মুখ সমরে আসুন। ভোেট ঘোষণা হয়েছে ১৬ মার্চ, বিজেপি প্রার্থী ঘোষণা করছিল ১৬ এপ্রিল। ভোেট কীভাবে কাটা যায় অপেক্ষা করছিল। আমি তো বলেছি যে খুশি দাঁড়াক। যারা এলাকা চেনে না, কটা ব্লক, ক’টা পুরসভার কটা ওয়ার্ড বলতে পারবে না, তারা নাকি অভিষেককে খেদাবে। আমি বলব, ৩ নম্বরে ছিল, ৩ নম্বরেই থাকবে। মানুষকে দুর্বল ভাবা, পারবে না। বাড়ির প্রতিশ্রুতি এই মঞ্চ থেকেই দিয়ে গেলাম। এ বছর শেষের আগেই।

কি বললেন অভিষেক

এই গরমে ৭ দফায় নির্বাচন করছে। যত কেন্দ্রীয় বাহিনী বাড়বে, তৃণমূলের জয়ের ব্যবধান তত বাড়বে।
আমি গণতন্ত্রে রাজনীতির ছাত্র, মানুষের ক্ষমতায় বিশ্বাস করি, কোনও রাজনেতার ক্ষমতায় নয়। তাই যে ডায়মন্ড হারবার নিয়ে পাঁচ বছর ধরে কটাক্ষ করেছিল, প্রার্থী খুঁজতে দেড় মাস লেগে গিয়েছে। এটা আমার সাফল্য বা জয় নয়, আপনাদের জয়। অনেকে আমাকে বলেন, ডায়মন্ড হারবারের মানুষের সত্যি খুব ভাল ভাগ্য এমন একজন সাংসদ পেয়েছেন। আমি বলি ভুল, আমার ভাগ্য ভাল। আমি আগের জন্মে নিশ্চয়ই আগের জন্মে কোনও ভাল কাজ করেছিলাম, তাই এখানকার মানুষকে পেয়েছি। আমি ভোট চাইতে আসিনি। আগামী ৭-১০ দিনের মধ্যে মনোনয়ন জমা দেব। আমি খালি আপনাদের অনুমতি নিতে এসেছি। এই বাংলার ৪২ আসনের মধ্যে তৃণমূলের সবচেয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি ডায়মন্ড হারবার। আপনারা ডায়মন্ড হারবারের দায়িত্ব নিন। বাকি ৪১ কেন্দ্রের দায়িত্ব আমার। আমি যাতে বাকি ৪১ টাতে সময় দিয়ে, বাংলার বিরোধীদের বাংলা ছাড়া করার লড়াইয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত শক্তিশালী করে, আগামীদিন বিরোধীদের বিতাড়িত করতে পারি, সেই অনুমতিটা আপনাদের কাছে নিতে এসেছি। ডায়মন্ড হারবার নিয়ে ৫ বছর ধরে কটাক্ষ করেছিল, আর প্রার্থী খুঁজতে দেড় মাস লেগেছে। সিপিএম-বিজেপির উচিত ছিল, প্রার্থী হওয়ার জন্য খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দেওয়া। এখনও সময় আছে, মনোনয়ন শুরু হয়নি। যদি কোনও কেন্দ্রীয় নেতা দাঁড়াতে চান, তাহলে স্বাগত। যারা ভোট চাইতে এসেছে, তাদের ভাষা শুনেছেন? বলছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে খেদাও। কী করে খেদাবে? আমি মানুষের মনে বসে আছি। আমি বলেছিলাম ৪ লক্ষ ভোটে জিতব। যা ভালোবাসা দেখছি, ৪ লক্ষ যদি ৫ লক্ষ হয়, অবাক হব না।

বিজেপি প্রার্থী, সিপিএম প্রার্থী যাঁরা লড়ছেন, সকলের গণতন্ত্রে লড়ার অধিকার আছে। আপনাদের একটা কথাই বলতে চাই, যখন আপনারা ঘুমিয়েছেন, ডায়মন্ড হারবারে কাজ হয়েছে।

বিজেপি লক্ষ্মীর ভাণ্ডার বন্ধ করতে চায়। কোচবিহারে বিজেপির নেত্রী বলেছেন, অথচ তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপি কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। তার মানে ধরে নিতে হবে যেভাবে ১০০ দিনের টাকা, আবাসের টাকা বন্ধ করেছেন, লক্ষ্মীর ভাণ্ডারও বন্ধ করতে চান? আমরাও বলে রাখি, যতদিন আমরা ক্ষমতায় আছি, সরকার আছে, বাংলায় তৃণমূল আছে, লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আশেপাশে আসতে দেবো না। এটা তৃণমূলের গ্যারান্টি।

চার বছর ধরে কেন্দ্র আবাসের টাকা দেয়নি। তবে এখানকার সবাইকে আশ্বস্ত করছি, ফল ঘোষণার পর ৬ তারিখ আদর্শ আচরণ বিধি উঠে যাওয়ার ৬ মাসের মধ্যে যারা বাড়ির জন্য আবেদন করেছেন, সবার বাড়ির প্রথম কিস্তির টাকা পাঠিয়ে দেব। এ বছর শেষ হওয়ার আগে টাকা পাঠিয়ে দেব। এটা আমার গ্যারান্টি।

আমার কাজকে কটাক্ষ করে ডায়মন্ড মডেল বলে বাকিদের থেকে দূরত্ব তৈরির চেষ্টা করে তাদের বলব ডায়মন্ড মডেল পথ দেখিয়েছে, আগামী দিনে ৪১ লোকসভাতেই এই ডায়মন্ডের উন্নয়ন মডেল বায় স্তবায়িত করে দেখাব।

Scroll to Top