হাইলাইট
।।ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি।।কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর।।চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান।।সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন।।এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়।।প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো।।ভাজপা প্রার্থী হিরণের ডক্টরেট ডিগ্রি জাল।।বিজেপির দিকে ভোট সুইং হবে না, মোদিকে চ্যালেঞ্জ, দম থাকলে আমার সঙ্গে মুখোমুখি বিতর্ক সভায় বসুন।।থেকে যাওনা গো।।মমতার তরুণ তুর্কি দেবাংশু নীল ঘোড়ায়।।সর্বত্র ভাজপা হারছে, না হলে বলে জগন্নাথদেবও মোদির ভক্ত।।বিজেপির একটা বুথে মদ খাওয়ার খরচ ৫০০০ টাকা।।৬ মাসের মধ্যে শুরু হবে ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কাজ।।পুরুলিয়ায় মোদির মঞ্চে ভারত সেবাশ্রমের সাধু।।১ মের বদলে ১ এপ্রিল থেকে ডিএ দেওয়ার সিদ্ধান্ত
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

ভোটের জন্য বহুরূপী সাজলেও না জানেন রবীন্দ্রনাথ, না জানেন মহাত্মা গান্ধি

ভোটের শেষ লগ্নে মোদিবাবুর মত, গান্ধি সিনেমা তোলা না হলে সারা বিশ্ব গান্ধির নামও জানত না ৩৬৫ দিন। ১০ অগাস্ট ২০০৭ : দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী অবস্থানকে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর

রাজ্যসঙ্গীত গাইতে গিয়ে পদে পদে হোচট খেলেন মোদী ৩৬৫দিন। কলকাতা হাইকোর্টের তৃণমূল বিরোধী রায়কে সমর্থন প্রধানমন্ত্রীর। মঙ্গলবার সপ্তম দফার নির্বাচনের প্রচারে বাংলায় এসে তৃণমূল বিরোধী

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

চরম অটোক্র্যাট মোদি ৮০000 হাজার টাকার ব্যাঙের ছাতা খান

মোদির স্বৈরতান্ত্রিকত আচরণের বিরুদ্ধে মমতার গর্জন ৩৬৫ দিন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লাঞ্চের খরচ প্রায় চার লক্ষ টাকা। উনি যে ব্যাঙের ছাতা বা মাশরুম খান সেটি

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চরম বিতর্কিত হিন্দু ধর্মের বিজ্ঞাপন

এবার ঘোমটার আড়ালে ভাজপার খ্যামটা নাচ,নিউজ মিডিয়া ছেড়ে সোশাল মিডিয়ায় বিপুল টাকা ঢেলে ৩৬৫ দিন। মোদী হ্যায় তো মুমকিন হ্যায়! তার জেরে জাতীয় নির্বাচন কমিশন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

এই কদর্য রিমেক ভাজপাকেই মানায়

গৌতম ঘোষের ধিক্কার গৌতম ঘোষ। ৩৬৫ দিন। সত্যজিৎ রায়ের হীরক রাজার দেশে ছবিকে ,তার সংলাপকে, সেটকে এবং চরিত্রদের বিকৃত করে যে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বিজেপি নির্মাণ

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

প্রধানমন্ত্রীর পদ ব্যবহার করে বিজেপির প্রচার করছেন মো

মমতার গর্জন, বিজ্ঞাপনেও লিখছে প্রধানমন্ত্রীর রোড শো ৩৬৫ দিন। আগামীকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির রোড শো উত্তর কলকাতায়। নির্বাচন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রীর ব্যাচ লাগিয়ে এই রোড

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

কোচবিহারের বিতর্কিত প্রাক্তন SP দেবাশীষ ধরের প্রথম বিধ্বংসী সাক্ষাৎকার, জাস্টিস গাঙ্গুলীর মতোই পুলিশের পদে থেকে ভাজপার সঙ্গে ডিল “আমার কাছে পুলিশের উর্দি আর গেরুয়া উত্তরীয় একই”


বীরভূমের তারাপীঠ থেকে

রিপোর্ট।  সৌগত মণ্ডল
ছবি। অমিত বন্দ্যোপাধ্যায়

আইপিএস-এর খাকি পোশাক আর সঙ্গে পুলিশ কর্মীদের ঘিরে থাকতে দেখেছি বরাবর তাঁকে। এবারের ভোটে প্রার্থী হওয়ার পরে বীরভূমের ভাজপা প্রার্থী দেবাশীষ ধর-এর সঙ্গে দেখা হল অনেকদিন পরে আবহাওয়া দপ্তরের সতর্কতা সত্যি করে বাইরে রীতিমতো তখন চলছে তাপপ্রবাহ। লাল মাটির বীরভূমে ৪৬ ডিগ্রীর গনগনে রোদে তেতে পুড়ে তখন হাজির হলেন তারাপীঠের মন্দিরে পুজো দিতে।
দিন কয়েক আগেও যিনি খাকি পোশাক পরে ঘুরতেন হঠাৎ করে তাকে দেখেই একটু চমকে গেছিলাম। গলায় ভারতীয় জনতা পার্টির উত্তরীয় আর পরনে একবারে রাজনীতিবিদ সুলভ সাদা পাজামা পাঞ্জাবি। সঙ্গে ভাজপার গুটি কয়েক ছোট মেজ সেজ নেতা, যাঁরা মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন ইস্যুতে স্লোগান তুলছেন জয় শ্রীরাম। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে কোচবিহারের পুলিশ সুপার থাকাকালীন শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের গুলিতে পাঁচ জনের হত্যার ঘটনায় বারে বারে তার নাম উঠে আসার প্রেক্ষিতে কয়েকদিন আগেই পুলিশের চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে রাতের ভাজপা প্রার্থীর তালিকায় নাম তুলে নিয়েছেন দেবাশীষ ধর। শীতলকুচিতে সংখ্যালঘু ভোটারদের হত্যার দাগ মুছতেই তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির ওয়াশিং মেশিনে যোগ দিয়েছেন বলে, যে সমস্ত অভিযোগ উঠেছে তার প্রেক্ষিতে কথা বললাম দেবাশীষের সঙ্গে।

প্রশ্ন  রাতারাতি পুলিশের খাকি উর্দি ছেড়ে রাজনীতিবিদের পোশাক পরে গলায় উত্তরীয় ঝুলিয়ে ভোট চাইতে যেতে নিজের কোন সমস্যা হচ্ছে না?

দেবাশীষ ধর  দেখুন আমি চিরকাল চাকরি জীবনের শুরু থেকেই অত্যন্ত সুশৃংখল ভাবে ডিসিপ্লিনড একটা ফোর্সের অংশ হিসেবে কাজ করেছি। স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পরে বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দিয়েছে যেখানে ডিসিপ্লিন হলো শেষ কথা। তাই খাকি উর্দি হোক আর ভাজপার উত্তরীয় আমার কাছে কোন সমস্যা হয় না।

প্রশ্ন  কিন্তু আপনার তো চাকরি জীবনের শুরু থেকেই কখনো নিজের পদ কাজে লাগিয়ে টাকা নয় ছয় করা আবার কখনো বিপুল আয় বহির্ভূত সম্পত্তি তৈরি বা কখনো বা ভোটের সময় গণহত্যার অভিযোগের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে আপনার বিরুদ্ধে বারে বারে। তারপরেও আপনি নিজেকে শৃঙ্খলা বদ্ধ বলেন কিভাবে?

দেবাশীষ ধর  আমার বিরুদ্ধে আগাগোড়া বহু বিষয়ে চক্রান্ত করা হয়েছে। খোদ মুখ্যমন্ত্রী নিজেও স্বীকার করেছেন আমাকে ফাঁসিয়েছেন তিনি। (যদিও কোথায় কিভাবে ফাঁসিয়েছেন তার কোন তথ্য প্রমাণ রয়েছে কিনা কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি বীরভূমের ভাজপা প্রার্থী)

প্রশ্ন একজন আইপিএস অফিসার হিসেবে কর্তব্যরত থাকাকালীন ভোটে প্রার্থী হওয়ার বিষয় ভাজপার সঙ্গে ডিল করছিলেন?

দেবাশীষ ধর  আমি কোন ডিল করিনি। আমার কাছে বিজেপি অফার দিয়েছিল প্রার্থী হওয়ার তার পরেই আমি চাকরি ছেড়ে দিই।

প্রশ্ন  পুলিশের চাকরিতে থাকাকালীন সরাসরি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠকে নীতিবিরুদ্ধ নয়?

দেবাশীষ ধর  যত দোষ নন্দ ঘোষ? যত দোষ সব দেবাশীষ ধরের? আরো তো প্রচুর পুলিশ অফিসার আছে যারা এইভাবে করে যাচ্ছে। আমি করলেই যত দোষ!

প্রশ্ন  কিন্তু অভিজিৎ গাঙ্গুলিও যেমন বিচারপতি পদে বসে থেকে বিজেপির সঙ্গে ডিল করতেন আপনিও ভাজপার সঙ্গে ডিল করে একুশের ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দিয়ে গণহত্যা করিয়েছিলেন বলে অভিযোগ।

দেবাশীষ ধর  দেখুন শীতলকুচির ঘটনায় কয়েকজন মারা গেছিল বটে কিন্তু ওটা গণহত্যা বা হত্যা নয়। যারা গুলি চালিয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা, তারা নিজেদের আত্মরক্ষার জন্যই গুলি চালিয়েছিল। আর একটা কথা মনে রাখবেন যে মুখ্যমন্ত্রী বা তৃণমূল নেতারা যেভাবে বলছেন যে আমি এসপি ছিলাম বলে আমার নির্দেশে নাকি কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালিয়েছিল তাদের এইটুকু কমনসেন্স থাকা উচিত কেন্দ্রীয় বাহিনী কখনো রাজ্য পুলিশের নির্দেশে চলে না। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা চলে তাদের কমান্ডিং অফিসারের নির্দেশে।

প্রশ্ন  তাহলে শীতলকুচিতে কি ঘটেছিল

দেবাশীষ ধর   চিফ মিনিস্টার আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো তুলছেন সেগুলো আসলে আমাকে ফাঁসানোর জন্য একটা চক্রান্ত তৈরি করেছিলেন উনি। শীতলকুচির ঘটনায় আমি সম্পূর্ণ নির্দোষ। মুখ্যমন্ত্রী নামে অত অভিযোগ রয়েছে শীতলকুচির ঘটনার জন্য উস্কানি দিয়েছিলেন বলে। আসল দোষী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রশ্ন  ভাজপা যে এখানে নির্বাচনী ম্যানিফেস্টো হিসেবে মোদির গ্যারান্টি ঘোষণা করেছে আপনি প্রচারে সেসব ঘোষণা না করে আমার স্বপ্ন আমার অঙ্গীকার বলে একটা ম্যানিফেস্টো বের করেছেন। মোদির গ্যারান্টিতে বিশ্বাস নেই আপনার?

দেবাশীষ ধর  মোদির গ্যারান্টিতে বিশ্বাস থাকবে না কেন? তবে আমি বিষয়গুলোকে স্থানীয়ভাবে একটা আলাদা তালিকা তৈরি করেছি। মোদির গ্যারান্টিতে যে বিষয়গুলো রয়েছে সেটা তো গোটা দেশের বিষয়। ইন্টারনেটে তো আর আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষ সবকিছু দেখতে পান না। বাংলায় নিজেদের এলাকার বিষয়গুলো যাতে লোকে দেখতে পান সেই জন্য আমি এই অঙ্গীকার পত্র তৈরি করেছি।

তারাপীঠের মন্দিরের চাতালে দাঁড়িয়ে নিজের দল ভাজপাকে হিন্দুত্ববাদী এবং এবার ভাজপা জিতে সরকার গঠন করলে দেশকে হিন্দুরাষ্ট্র গঠন করার জন্য যে বিন্দুমাত্র দেরি করবে না তা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন বীরভূমের ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী। যেভাবে প্রচারের সময় সারাক্ষণ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ আর মাথায় ফেডটি বাঁধা জোনা কয়েক উগ্র হিন্দুত্ববাদীকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তার প্রেক্ষিতে জিজ্ঞাসা করেছিলাম,
দেশে রাম মন্দির তৈরি নিয়ে যে উন্মাদনা বিজেপি তৈরি করেছিল তার প্রেক্ষিতে এবারে ভোটে জিতলে কি চাইবেন ভারতে হিন্দু রাষ্ট্র বলে ঘোষণা হোক নাকি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসেবে থাকুক?

দেবাশীষ ধর   আমাদের ম্যানিফেস্টোতেই তো মোদীজি বলে দিয়েছেন। ভারতের যে সনাতন ধর্মের ঐতিহ্য সেই অনুযায়ী ভারত বর্ষকে হিন্দু রাষ্ট্র বলে ঘোষণা করাটাই তো আমাদের কর্তব্য। মোদীজি এভাবে বলেছেন আমাদের এবারে ৪০০ আসনে জিততে হবে এই ৪০০ আসন জিতে যে সমস্ত আইন বদল করার প্রয়োজন সেগুলো বদল করে আমরা নিজেদের প্রতিশ্রুতি পূর্ণ করব।

প্রশ্ন  কিন্তু আপনার বিরুদ্ধে তো সম্পত্তি নয় ছয় থেকে শুরু করে আয়বহির্ভূত বিপুল সম্পত্তির অভিযোগে সিআইডি তদন্ত করছে!

দেবাশীষ ধর  দেখুন আমার যদি অত টাকা থাকতো আমি অত কিছু করলে আমি আজ এই জায়গায় থাকতাম না। সিআইডি আর রাজ্য পুলিশের যে অফিসাররা আমার বিরুদ্ধে এসব হিসেব দেখিয়েছে তাদের এর পরিণাম ভোগ করতে হবে। আমি কোন বেআইনি সম্পত্তি বানাইনি। নিজের জন্মদিন হলেও সকালে জোটেনি মায়ের হাতের বানিয়ে দেওয়া পায়েস অথবা স্ত্রী কন্যার শুভেচ্ছা। কারণ সকলেই পরিবারের সকলেই তাঁকে ছেড়ে চলে গিয়েছেন অসামাজিক বলে অভিযোগ করে। তাই জন্মদিনে দলের রাজনৈতিক কর্মসূচি মেনে তারাপীঠ মন্দিরের পাশেই দিলীপ ঘোষের স্টাইলে মাটির ভাঁড়ে চা আর বিস্কুটের প্যাকেট নিয়ে জনসংযোগে বসে পড়েছিলেন। ‌

প্রশ্ন  আপনি তো সবকিছুতেই বলছেন আর্থিক নয় ছয়ের অভিযোগে ও মুখ্যমন্ত্রীর চক্রান্ত আবার শীতল কুচি গণহত্যায় আপনাকে অভিযুক্ত করার পিছনেও চক্রান্ত। আপনার মা এবং স্ত্রী কন্যা আপনাকে বাড়ি থেকে বের করে দিল কেন? আপনার সঙ্গে নিজের মা বা স্ত্রী সম্পর্ক রাখেন না কেন? সেখানেও কি তৃণমূলের চক্রান্ত?

দেবাশীষ ধর   না সেটা বলবো না। কিন্তু আমাকে এত রকম ভাবে ফাঁসানো হয়েছে যে আমার মেয়ে আজ তিন বছর আমার মুখ দেখেনা। আমার মার সঙ্গে আমার কোন সম্পর্ক নেই। এভাবে কি কোন মানুষ থাকতে পারে?

Scroll to Top