হাইলাইট
।।উফ কী গরম ! Part-189।।রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার।।টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব।।মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ।।নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা।।উফ কী গরম ! Part-188।।শপথের জন্য রাজ্যপালকে আর্জি,রাজ্যপাল টালবাহানা করলে শপথ পাঠ করাবেন অধ্যক্ষ।।মিথ্যা ন্যারেটিভ ছড়িয়ে বাংলায় দাঙ্গার চক্রান্ত, অসমের গরু পাচারের ভিডিও হুগলির ঘটনা বলে প্রচার।।আকাশ দখল ঠেকাতে কেএমসি’র নয়া নীতি, তৈরি হবে নো হোর্ডিং জোন।।ত্রাতা মার্তিনেজ, কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।।গাছেদের সুরক্ষায় কলকাতায় চালু হবে ট্রি অ্যাম্বুলেন্স।।শতবর্ষে বাদল সরকার,শহরে চলছে বাদল থিয়েটার মেলা।।আততায়ী কে? ২০ বছরের মেধাবী ছাত্র টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস।।উফ কী গরম ! Part-187।।মার্কিন বন্দুকবাজের হাতে খুন ৪ প্রেসিডেন্ট, ৮ অল্পের জন্য রক্ষা
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-189

উফ কী গরম ! HOT BIKINI নিকোল মিনেতি ৩৬৫ দিন। কম বয়সেই উচ্চতার শিখরে উঠেছিলেন।এক একটা সিঁড়ি পার করে এখন তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ।টেলিভিশন থেকে

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার

৩৬৫ দিন। ফিরে এলেন রাজীব কুমার। ফিরলেন রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল পদে। লোকসভা নির্বাচনের পরে রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল রাজীব কুমারকে সরিয়ে দিয়েছিল জাতীয় নির্বাচন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব

৩৬৫ দিন। কলকাতা শহরের স্ট্রিট ফুডের সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের। ডেকারস লেন থেকে শুরু করে টেরিটি বাজারের স্ট্রিট ফুড বিশ্বের যে কোন দেশের স্ট্রিট ফুডের সঙ্গে পাল্লা

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ

৩৬৫দিন। মানবিক মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের প্রাক্তন কারামন্ত্রী তথা আরএসপির নেতা বিশ্বনাথ চৌধুরীর চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী। ৭ বারের আরএসপি বিধায়ক দীর্ঘ দিন ধরে ক্যানসারে ভুগছেন।

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা

৩৬৫ দিন।কলকাতা পুরসভার অভিযানে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।পার্ক সার্কাসের নামি বিরিয়ানির দোকানে মেশানো হচ্ছে রং।সেই রং যে বিষাক্ত তা ধরা পড়ল পরীক্ষা করে।রেস্তরাঁটির বিরিয়ানির নমুনা

Read More »
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-188

উফ কী গরম ! HOT BIKINI মিডিয়াম জিওভেনালি ৩৬৫ দিন। জনপ্রিয় মডেল তো বটেই।তবে বডি বিল্ডার হিসেবেই বেশি বিখ্যাত তিনি।কিভাবে নিজের শরীর-স্বাস্থ্য সুস্থ রাখেন তিনি

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই হলং বনবাংলো

৩৬৫ দিন। বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেল জলদাপাড়ার ঐতিহ্যবাহী সরকারি বনবাংলো হলং। রাত ৯টা নাগাদ হলং বাংলোতে কর্মীরা আগুন দেখতে পান। বর্ষায় জঙ্গল পর্যটকদের জন্য বন্ধ থাকার কারণে বাংলো ফাঁকা ছিল। কোনো পর্যটক না থাকায় কোনো হতাহত হয়নি। ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক কর্মীরা জানান, শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে। বাংলোটি সম্পূর্ণ কাঠের তৈরি হওয়ায় মুহূর্তেই আগুন বিরাট আকার ধারণ করে। উপস্থিত বন কর্মীরা অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলেও লাভের লাভ হয়নি। ফালাকাটা ও হাসিমারা থেকে দমকলকে ডাকা হয়। তারা ১০.১০ নাগাদ জঙ্গলের মধ্যে হলং পৌঁছয়। ততক্ষণে বাংলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ওসি, বিডিও মাদারিহাট, এডব্লিউএলডব্লিউ, ডিএফও এবং অন্যান্য বনকর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসেন। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে এসি মেশিন থেকে শর্ট সার্কিট হয়ে আগুন লাগে। উত্তরবঙ্গের মুখ্যবনপাল ভাস্কর জে ভি জানিয়েছেন, আগুন লাগার কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আর্থিক ক্ষয় ক্ষতির পরিমান জানা যায়নি।১৯৬৭ সালে মাদারিহাটে জলদাপাড়া জঙ্গলের ভেতর বাংলোটি তৈরি করা হয়। জলদাপাড়ায় জঙ্গলের মধ্যে হলং বাংলো পর্যটকদের কাছে খুবই আকর্ষণীয় স্থান ছিল। জঙ্গলের নিস্তব্ধতায় কিছুটা সময় কাটাতে প্রায় ৫৭ বছর ধরে এই বাংলোটিতে অজস্র পর্যটক এসে থেকেছেন। সামনেই রয়েছে সল্টপিট। যেখানে হাতি,গন্ডার, হরিণের দেখা মেলে দিনভর। এদিন বাংলোটি আগুনে পুড়ে যাওয়ার খবরে পর্যটন মহলেরও মন খারাপ।পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন নিগমের অধীনে রয়েছে এই বন বাংলো। জলদাপাড়া অভয়ারণ্যের মধ্যে দিয়ে ৭-৮ কিমি রোমহর্ষক পথ অতিক্রম করে পৌঁছানো যায় হলংয়ে। দু'দিকে সবুজের সমারোহ। যাতায়াতের পথে কখনও হাতি কখনও গণ্ডারের দেখা মিলবে। তাছাড়া হলং বাংলোর পাস থেকেই করা যায় জলদাপাড়ার এলিফ্যান্ট সাফারি। ফলে এই বাংলোয় থাকলে এতদিন এলিফ্যান্ট সাফারি করার জন্য বিশেষ সুবিধা পেত পর্যটকরা। বহু বিদেশি পর্যটকরাও ডুয়ার্স ঘুরতে এলে হলং বাংলোকে থাকার জন্য বেছে নিতেন। এখানে ৫টি ডাবল বেডের রুম ছিল। কয়েক মাস আগে অনলাইনে বুকিং করতে হত। এই বাংলোর বুকিং পেতে সব সময় অপেক্ষা করতে হতো পর্যটকদের। বিশেষ করে পুজোর সময় এবং শীতকালে পর্যটকদের ভিড় থাকত সবচেয়ে বেশি

Scroll to Top