হাইলাইট
।।উফ কী গরম ! Part-189।।রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার।।টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব।।মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ।।নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা।।উফ কী গরম ! Part-188।।শপথের জন্য রাজ্যপালকে আর্জি,রাজ্যপাল টালবাহানা করলে শপথ পাঠ করাবেন অধ্যক্ষ।।মিথ্যা ন্যারেটিভ ছড়িয়ে বাংলায় দাঙ্গার চক্রান্ত, অসমের গরু পাচারের ভিডিও হুগলির ঘটনা বলে প্রচার।।আকাশ দখল ঠেকাতে কেএমসি’র নয়া নীতি, তৈরি হবে নো হোর্ডিং জোন।।ত্রাতা মার্তিনেজ, কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।।গাছেদের সুরক্ষায় কলকাতায় চালু হবে ট্রি অ্যাম্বুলেন্স।।শতবর্ষে বাদল সরকার,শহরে চলছে বাদল থিয়েটার মেলা।।আততায়ী কে? ২০ বছরের মেধাবী ছাত্র টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস।।উফ কী গরম ! Part-187।।মার্কিন বন্দুকবাজের হাতে খুন ৪ প্রেসিডেন্ট, ৮ অল্পের জন্য রক্ষা
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-189

উফ কী গরম ! HOT BIKINI নিকোল মিনেতি ৩৬৫ দিন। কম বয়সেই উচ্চতার শিখরে উঠেছিলেন।এক একটা সিঁড়ি পার করে এখন তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ।টেলিভিশন থেকে

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার

৩৬৫ দিন। ফিরে এলেন রাজীব কুমার। ফিরলেন রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল পদে। লোকসভা নির্বাচনের পরে রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল রাজীব কুমারকে সরিয়ে দিয়েছিল জাতীয় নির্বাচন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব

৩৬৫ দিন। কলকাতা শহরের স্ট্রিট ফুডের সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের। ডেকারস লেন থেকে শুরু করে টেরিটি বাজারের স্ট্রিট ফুড বিশ্বের যে কোন দেশের স্ট্রিট ফুডের সঙ্গে পাল্লা

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ

৩৬৫দিন। মানবিক মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের প্রাক্তন কারামন্ত্রী তথা আরএসপির নেতা বিশ্বনাথ চৌধুরীর চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী। ৭ বারের আরএসপি বিধায়ক দীর্ঘ দিন ধরে ক্যানসারে ভুগছেন।

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা

৩৬৫ দিন।কলকাতা পুরসভার অভিযানে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।পার্ক সার্কাসের নামি বিরিয়ানির দোকানে মেশানো হচ্ছে রং।সেই রং যে বিষাক্ত তা ধরা পড়ল পরীক্ষা করে।রেস্তরাঁটির বিরিয়ানির নমুনা

Read More »
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-188

উফ কী গরম ! HOT BIKINI মিডিয়াম জিওভেনালি ৩৬৫ দিন। জনপ্রিয় মডেল তো বটেই।তবে বডি বিল্ডার হিসেবেই বেশি বিখ্যাত তিনি।কিভাবে নিজের শরীর-স্বাস্থ্য সুস্থ রাখেন তিনি

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

ভয়ংকর জনবিরোধী নতুন তিন ফৌজদারী আইন স্থগিত করুন – প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মমতার

৩৬৫ দিন। দীর্ঘকাল ধরে ভারতীয় সমাজ ব্যবস্থার সঙ্গে অজ্ঞাঅঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে থাকা ফৌজদারি আইন গুলি বাতিল করে নতুন যে তিন ফৌজদারি আইন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার তা সর্বৈব ভাবে জনবিরোধী এবং দেশের মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতা খর্ব করবে। আপনার কাছে অনুরোধ এই আইন দেশে চালু করার যে সিদ্ধান্ত আপনার সরকার নিয়েছে তা স্থগিত করুন অবিলম্বে। এই মর্মে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে চিঠি পাঠালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। এই ইস্যুতে এর আগে গত নভেম্বর মাসেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে চিঠি দিয়েছিলেন মমতা। এবার তিনটি আইনে স্থগিতাদেশ চেয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকেই চিঠি লিখলেন তিনি। নিজের দাবির সপক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে মমতা লিখেছেন, দণ্ড সংহিতা আইন যে সময়ে পাশ হয়, তখন অধিকাংশ সাংসদ সাসপেন্ড ছিলেন। যথাযথভাবে আলোচনাও হয়নি এই আইন নিয়ে। এই আইন যদি কার্যকর হয়, তা হলে ভারতবর্ষ পুলিশি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হবে। এই আইনে বেশ কিছু ত্রুটি থাকতে পারে। নৈতিকভাবে এই আইন কার্যকর করা উচিত নয় সরকারের। ১ জুলাই এই আইন কার্যকর না করে সময়সীমা পিছিয়ে দেওয়া উচিত। গত ডিসেম্বরে সংসদের দুই কক্ষের ১৪৬ জন সাংসদকে বহিষ্কারের পর যে স্বৈরাচারী পদ্ধতিতে ওই তিনটি বিল পাশ করানো হয়েছিল, তা ভারতীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি কালো দাগ। এখন তা পুনর্বিবেচনার প্রয়োজন।

ভারতীয় সমাজ ব্যবস্থায় প্রায় ১৬০ বছর ধরে চালু থাকা পুরনো ফৌজদারি আইনে বদল এনে বর্তমানে ভারতীয় ন্যায় সংহিতা, ভারতীয় নাগরিক সুরক্ষা সংহিতা ও ভারতীয় সাক্ষ্য বিল পাশ করিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। লোকসভা এবং রাজ্যসভা উভয় কক্ষ থেকে প্রায় সমস্ত বিরোধী সংসদ কে সাসপেন্ড অথবা বহিষ্কার করে বিরোধীশূন্য সংসদে এই তিন বিল পাস করিয়েছিলেন অমিত শাহ। কিন্তু বিরোধীরা প্রথম থেকেই এই নতুন ফৌজদারি আইন নিয়ে আপত্তি তুলে এসেছে। আগামী ১ জুলাই থেকে এই নতুন আইন কার্যকর হওয়ার কথা। কেন্দ্রে তৃতীয় মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পরেই বিরোধীদের সমস্ত আপত্তি উড়িয়ে এমনই ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। আইন কার্যকর হওয়ার কয়েকদিন বাকি থাকতেই প্রধানমন্ত্রীকে এই ব্যাপারে চিঠি লিখে মমতা স্পষ্ট জানালেন, তিনি চান এই আইন এখনই কার্যকর না করা হোক।

লোকসভায় এই তিনটি নতুন আইন নিয়ে আলোচনার পরই সে ব্যাপারে পরবর্তী পদক্ষেপ করার আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, গত বছরের আগস্ট মাসে সংসদের বাদল অধিবেশনের সময় নতুন তিনটি বিল পেশ করে তৎকালীন মোদী সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ লোকসভায় তিনটি বিল পেশ করে জানিয়েছিলেন ১৮৬০ সালে তৈরি ইন্ডিয়ান পেনাল কোড বা ভারতীয় দণ্ডবিধি বদলে গিয়ে ভারতীয় ন্যায় সংহিতা আইন হবে। সেই সঙ্গে ১৮৯৮ সালের ক্রিমিনাল প্রসিডিওর অ্যাক্ট বা ফৌজদারি দণ্ডবিধি বদলে হবে ভারতীয় নাগরিক সুরক্ষা সংহিতা আইন। একইভাবে ১৮৭২ সালের ইন্ডিয়ান এভিডেন্স অ্যাক্ট হওয়ার কথা ভারতীয় সাক্ষ্য বিল।

এই তিনটি নতুন আইন নিয়ে মমতার বক্তব্য, এই তিন বিল ভারতের সামগ্রিক নীতির ওপর শুধু প্রভাব ফেলবে না, জনজীবনের ওপর দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়বে। এর আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে দেওয়া চিঠিতে তিনি এই কথা উল্লেখ করেছিলেন। এই বিল পাশ হওয়ার পরই মমতা বলেছিলেন, আগে রাষ্ট্রদ্রোহ আইন ছিল। তা প্রত্যাহারের নামে কেন্দ্রের সরকার প্রস্তাবিত ভারতীয় ন্যায় সংহিতায় আরও কঠোর এবং স্বেচ্ছাচারী ব্যবস্থা কায়েম করতে চাইছে। যা মারাত্মক ভাবে প্রভাবিত করতে পারে নাগরিকদের।

তৃতীয় দফায় মোদি সরকারের প্রথম সংসদ অধিবেশনের আগে প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে চিঠিতে এই আইনটি পুনরায় খতিয়ে দেখার দাবি জানিয়ে মমতার দাবি, ওই তিন আইন নতুন করে সংসদে পেশ করতে হবে। ওই আইনগুলি সেই সময় দ্রুততার সঙ্গে পাশ করানো হয়েছিল। এবার ওই আইনের অনেক ধারাতেই আপত্তি জানানো হবে। সেটা হলে, নতুন জনপ্রতিনিধিরাও আইনগুলি খতিয়ে দেখার সুযোগ পাবেন। নৈতিকতার দিক থেকে আমি মনে করি, সংসদীয় ব্যবস্থার স্বচ্ছতা এবং বিশ্বাসযোগ্যতার কথা ভেবে নবনির্বাচিত লোকসভার সদস্যদের তাঁদের আমলে কার্যকর হওয়া আইন নিয়ে বিতর্কে অংশ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া উচিত।

Scroll to Top