হাইলাইট
।।উফ কী গরম ! Part-189।।রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার।।টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব।।মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ।।নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা।।উফ কী গরম ! Part-188।।শপথের জন্য রাজ্যপালকে আর্জি,রাজ্যপাল টালবাহানা করলে শপথ পাঠ করাবেন অধ্যক্ষ।।মিথ্যা ন্যারেটিভ ছড়িয়ে বাংলায় দাঙ্গার চক্রান্ত, অসমের গরু পাচারের ভিডিও হুগলির ঘটনা বলে প্রচার।।আকাশ দখল ঠেকাতে কেএমসি’র নয়া নীতি, তৈরি হবে নো হোর্ডিং জোন।।ত্রাতা মার্তিনেজ, কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।।গাছেদের সুরক্ষায় কলকাতায় চালু হবে ট্রি অ্যাম্বুলেন্স।।শতবর্ষে বাদল সরকার,শহরে চলছে বাদল থিয়েটার মেলা।।আততায়ী কে? ২০ বছরের মেধাবী ছাত্র টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস।।উফ কী গরম ! Part-187।।মার্কিন বন্দুকবাজের হাতে খুন ৪ প্রেসিডেন্ট, ৮ অল্পের জন্য রক্ষা
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-189

উফ কী গরম ! HOT BIKINI নিকোল মিনেতি ৩৬৫ দিন। কম বয়সেই উচ্চতার শিখরে উঠেছিলেন।এক একটা সিঁড়ি পার করে এখন তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ।টেলিভিশন থেকে

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার

৩৬৫ দিন। ফিরে এলেন রাজীব কুমার। ফিরলেন রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল পদে। লোকসভা নির্বাচনের পরে রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল রাজীব কুমারকে সরিয়ে দিয়েছিল জাতীয় নির্বাচন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব

৩৬৫ দিন। কলকাতা শহরের স্ট্রিট ফুডের সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের। ডেকারস লেন থেকে শুরু করে টেরিটি বাজারের স্ট্রিট ফুড বিশ্বের যে কোন দেশের স্ট্রিট ফুডের সঙ্গে পাল্লা

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ

৩৬৫দিন। মানবিক মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের প্রাক্তন কারামন্ত্রী তথা আরএসপির নেতা বিশ্বনাথ চৌধুরীর চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী। ৭ বারের আরএসপি বিধায়ক দীর্ঘ দিন ধরে ক্যানসারে ভুগছেন।

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা

৩৬৫ দিন।কলকাতা পুরসভার অভিযানে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।পার্ক সার্কাসের নামি বিরিয়ানির দোকানে মেশানো হচ্ছে রং।সেই রং যে বিষাক্ত তা ধরা পড়ল পরীক্ষা করে।রেস্তরাঁটির বিরিয়ানির নমুনা

Read More »
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-188

উফ কী গরম ! HOT BIKINI মিডিয়াম জিওভেনালি ৩৬৫ দিন। জনপ্রিয় মডেল তো বটেই।তবে বডি বিল্ডার হিসেবেই বেশি বিখ্যাত তিনি।কিভাবে নিজের শরীর-স্বাস্থ্য সুস্থ রাখেন তিনি

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

স্বয়ং রামচন্দ্রের বদলা, 10 আসনে হারিয়ে দিলেন মোদিকে

যেখানে রাম সেখানে হার মোদী এন্ড কোং এর

৩৬৫দিন। রামের রোষের কাছেই পরাস্ত ভাজপা। লোকসভা নির্বাচনে জয় শ্রীরামেই হারতে হল মোদি-শাহদের। দেশের যেসব আসনে রাম নাম করে ভোটে নেমেছে, সেখানেই মুখ থুবড়ে পড়তে হয়েছে। মহাকাব্য থেকে রামকে রাজনীতির ময়দানে নামিয়ে এনে ভাজপার ৪০০ আসন পারের লক্ষ্য ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। অনেকেই বলছেন, শ্রীরাম যে মোদির সঙ্গে নেই, লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলই তার প্রমাণ। উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা থেকে কর্ণাটকের কোপ্পাল, মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে তামিলনাড়ুর রামেশ্বরম গোটা দেশের অন্তত এমন ১০টি আসন যার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে রামায়নের নানা কাহিনী, সেইসব আসনেই 'রাম ভক্ত' মোদির শোচনীয় পরাজয় হয়েছে।

১. রামের জন্মভূমি অযোধ্যায় ভোটের আগে কয়েকশো কোটি টাকা খরচ করে স্বপ্নের রাম মন্দির প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। রাম মন্দির প্রতিষ্ঠাকে কেন্দ্র করে গোটা উত্তর প্রদেশজুড়ে উগ্র হিন্দুত্ববাদের পরিবেশ তৈরি করা হয়। কিন্তু অযোধ্যার ধর্মনিরপেক্ষ মানুষ ভাজপার উগ্র হিন্দুত্ববাদের আস্ফালনকে প্রশ্রয় দেয়নি। খোদ রাম জন্মভূমিতেই ভরাডুবি হয়েছে ভাজপার।অযোধ্যা উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদ লোকসভা আসনের অন্তর্গত। ফৈজাবাদ লোকসভা আসনে সমাজবাদী পার্টির অবধেশ প্রসাদের কাছে বিরাট ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন ভাজপা প্রার্থী লাল্লু সিং। এই আসন থেকে ২০১৪ ও ২০১৯ সালের নির্বাচনে পরপর ২ বার জিতে সংসদে গিয়েছিলেন লাল্লু। এবার ৫৪,৪৬৭ ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন তিনি।

২. কথিত আছে অযোধ্যা থেকে বেরিয়ে রাম বনবাস করেছেন উত্তরপ্রদেশের চিত্রকুটে। এখানেই নাকি ১১ বছর বনবাস কাটিয়েছেন রামচন্দ্র। চিত্রকূট এলাকা উত্তরপ্রদেশের বান্দা লোকসভা কেন্দ্রের অধীনে রয়েছে। এখানেও ভাজপার একই হাল। সমাজবাদী পার্টির কৃষ্ণা দেবী ৭১,২১০ ভোটে ভাজপা প্রার্থী আর কে সিং পাটেলকে পরাজিত করেছেন। ফলে শুধু জন্মভূমি নয়, ১১ বছরের বনবাসের কেন্দ্রেও মোদিকে বাঁচায়নি খোদ রামচন্দ্র।

৩. কসীতাপুর তার পৌরাণিক ও ঐতিহাসিক পটভূমির কারণে ভারতে বিখ্যাত।ঐতিহ্যগতভাবে রামচন্দ্রের স্ত্রী সীতার নামেই সিতাপুরের নামকরণ বলে মনে করা হয়। কথিত আছে, সীতাপুর হচ্ছে সীতার তীর্থস্থল। তীর্থযাত্রার সময় নাকি এই স্থানে রামের সঙ্গে ছিলেন তিনি। এই পৌরাণিক স্থানেও মুখে চুনকালি পড়েছে ভাজপার। কংগ্রেসের রাকেশ রাঠোর প্রায় ৯০হাজার ভোটে ভাজপার রাজেশ শর্মাকে হারিয়েছেন।্দ্র।

৫. কফৈজাবাদ জেলার পার্শ্ববর্তী সুলতানপুর জেলায় রামের পুত্র কুশের জন্মস্থান বলেই জানা যায়। সুলতানপুর ভগবান রামের পুত্র কুশের নামানুসারে "কুশ ভবনপুর" করারও পরিকল্পনা নিয়েছে যোগী সরকার। কিন্তু তাতেও লাভের লাভ হয়নি। ভাজপার এখানেও একই অবস্থা। ৪০ হাজারের ওপরে ভোটে হারতে হয়েছে ভাজপাকে।

৬. কযোগী রাজ্যের আরো একটি আসন প্রয়াগরাজ। উত্তরপ্রদেশের ক্ষমতা দখল করে মুসলিমদের ইতিহাস মুছে ফেলতে এলাহাবাদের নাম পরিবর্তন করে প্রয়াগরাজ করে যোগী সরকার। প্রয়াগরাজ শহরটি উত্তরপ্রদেশের বৃহত্তম শহরগুলির মধ্যে একটি। তিনটি নদীর সঙ্গমস্থলে অবস্থিত - গঙ্গা, যমুনা এবং অদৃশ্য সরস্বতী। মিলনস্থলটি ত্রিবেণী নামে পরিচিত। যা হিন্দুদের কাছে পবিত্র তীর্থস্থান। এই শহরেই আর্যদের পূর্বের বসতি গড়ে উঠেছিল, যা তখন প্রয়াগ নামে পরিচিত ছিল। কথিত আছে, এই প্রয়াগ অতিক্রম করেই নাকি রাম-সীতা ও লক্ষ্ণণ বনবাসে গিয়েছিলেন। এই আসনে কংগ্রেসের প্রার্থী বিজয়ওয়াল রমন সিং ৫৮,৭৯৫ ভোটে ভাজপাকে হারিয়েছেন।

৭. বিশ্বাস করা হয়, মহারাষ্ট্রের নাগপুর জেলায় রামটেক সেই জায়গা যেখানে রাম বনবাসে থাকাকালীন বিশ্রাম করেছিলেন, তাই এর নাম রামটেক। হিন্দু ইতিহাস অনুসারে, হিন্দু ঋষি অগস্ত্যের আশ্রমটি রামটেকের কাছেই ছিল। এই আসনেও ভরাডুবি হয় ভাজ পার। কংগ্রেসের রাশমি শ্যাম কুমার ভারবে প্রায় ৭০ হাজার ভোটে জয়ী হয়েছেন।

৮. রামের বনবাসের সময়, রাক্ষস রাজা রাবণের বোন সূর্পনখা রামকে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন। রাগান্বিত হয়ে রাম লক্ষ্মণকে রাবণের বোন সূর্পনখার নাক কেটে ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন। বলা হয় সেই কারণেই নাম হয় নাসিক। এই নাসিক আসন মহারাষ্ট্রের অন্তর্গত। এই আসনের ফলাফলের দিকে তাকালে দেখা যাবে শিবসেনার উদ্ধব ঠাকরে শিবিরের কাছে পরাজিত হয়েছে ভাজপা। যেখানে ভোটের ব্যবধান দেড় লক্ষ্যেরও বেশি। শুধু উত্তরপ্রদেশেই নয়, মহারাষ্ট্রেও মোদিকে ছাড়েনি রামচন্দ্র।

৯. রতুঙ্গভদ্রা নদীর ওপারে আনেগুন্ডির কাছাকাছি কোপ্পাল জেলায় অবস্থিত অঞ্জনাদ্রি পাহাড়। এখানেই হনুমানের জন্মস্থান বলে মনে করা হয়। অঞ্জনার জন্মে, ভগবান হনুমানকে অঞ্জনেয়াও বলা হত। তাই পাহাড়টিকে অঞ্জনাদ্রি পাহাড় বলা হয়। যা তাঁর জন্মস্থান বলে বিশ্বাস করা হয়। বর্তমানে কর্ণাটকের কোপ্পাল জেলার মধ্যে পড়ে এই অঞ্চল। এই কোপ্পাল আসনেও হনুমানের রোষের মুখে পড়েছে মোদি। এই কেন্দ্রে কংগ্রেসের রাজাশেখরের বাসভরাজ হিটনাল জিতেছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভাজপা।

১০. রামেশ্বরম তামিলনাড়ুর অত্যন্ত বিখ্যাত এই তীর্থক্ষেত্রের উল্লেখ রয়েছে রামায়ণেও। অযোধ্যা থেকে ২৭০০ কিলোমিটার দূরে এই স্থানের ঐতিহাসিক গুরুত্বও অপরিসীম।রামেশ্বরমে অবস্থিত শিব মন্দির একটি পবিত্র তীর্থস্থান হিসাবে বিবেচিত হয়। পৌরাণিক বিবরণ অনুযায়ী, সীতাকে উদ্ধার করতে রাম সেতু পার হয়ে বর্তমান শ্রীলঙ্কা দ্বীপে যাওয়ার আগে শিব মন্দির প্রতিষ্ঠা করে, এখানেই শিবের আরাধনা করেছিলেন। এটি চারধাম তীর্থস্থানগুলির মধ্যে একটি। তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই রামেশ্বরমে আসনে ভাজপার জোট শরিক এইআইডিএমকে এর মানসম্মান গেছে ।এইআইডিএমকে শুধু পরাজিত হয়নি, এই আসনে জয়ী হয়েছে মুসলিম লীগ।

Scroll to Top