হাইলাইট
।।উফ কী গরম ! Part-189।।রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার।।টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব।।মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ।।নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা।।উফ কী গরম ! Part-188।।শপথের জন্য রাজ্যপালকে আর্জি,রাজ্যপাল টালবাহানা করলে শপথ পাঠ করাবেন অধ্যক্ষ।।মিথ্যা ন্যারেটিভ ছড়িয়ে বাংলায় দাঙ্গার চক্রান্ত, অসমের গরু পাচারের ভিডিও হুগলির ঘটনা বলে প্রচার।।আকাশ দখল ঠেকাতে কেএমসি’র নয়া নীতি, তৈরি হবে নো হোর্ডিং জোন।।ত্রাতা মার্তিনেজ, কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।।গাছেদের সুরক্ষায় কলকাতায় চালু হবে ট্রি অ্যাম্বুলেন্স।।শতবর্ষে বাদল সরকার,শহরে চলছে বাদল থিয়েটার মেলা।।আততায়ী কে? ২০ বছরের মেধাবী ছাত্র টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস।।উফ কী গরম ! Part-187।।মার্কিন বন্দুকবাজের হাতে খুন ৪ প্রেসিডেন্ট, ৮ অল্পের জন্য রক্ষা
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-189

উফ কী গরম ! HOT BIKINI নিকোল মিনেতি ৩৬৫ দিন। কম বয়সেই উচ্চতার শিখরে উঠেছিলেন।এক একটা সিঁড়ি পার করে এখন তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ।টেলিভিশন থেকে

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

রাজ্য পুলিশের ডিজি পদে ফিরলেন রাজীব কুমার

৩৬৫ দিন। ফিরে এলেন রাজীব কুমার। ফিরলেন রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল পদে। লোকসভা নির্বাচনের পরে রাজ্য পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল রাজীব কুমারকে সরিয়ে দিয়েছিল জাতীয় নির্বাচন

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

টালা ঝিলপার্ক, রাসেল স্ট্রিট, পাটুলিতে হচ্ছে স্ট্রিট ফুড হাব

৩৬৫ দিন। কলকাতা শহরের স্ট্রিট ফুডের সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের। ডেকারস লেন থেকে শুরু করে টেরিটি বাজারের স্ট্রিট ফুড বিশ্বের যে কোন দেশের স্ট্রিট ফুডের সঙ্গে পাল্লা

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

মানবিক মুখ্যমন্ত্রী : প্রাক্তন কারামন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ

৩৬৫দিন। মানবিক মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের প্রাক্তন কারামন্ত্রী তথা আরএসপির নেতা বিশ্বনাথ চৌধুরীর চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হলেন মুখ্যমন্ত্রী। ৭ বারের আরএসপি বিধায়ক দীর্ঘ দিন ধরে ক্যানসারে ভুগছেন।

Read More »
৩৬৫ দিন Exclusive
Avinash

নামী রেস্তোরাঁর বিরিয়ানিতে বিষ রং পুরসভার জরিমানা ৩ লক্ষ টাকা

৩৬৫ দিন।কলকাতা পুরসভার অভিযানে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।পার্ক সার্কাসের নামি বিরিয়ানির দোকানে মেশানো হচ্ছে রং।সেই রং যে বিষাক্ত তা ধরা পড়ল পরীক্ষা করে।রেস্তরাঁটির বিরিয়ানির নমুনা

Read More »
বিবি
Avinash

উফ কী গরম ! Part-188

উফ কী গরম ! HOT BIKINI মিডিয়াম জিওভেনালি ৩৬৫ দিন। জনপ্রিয় মডেল তো বটেই।তবে বডি বিল্ডার হিসেবেই বেশি বিখ্যাত তিনি।কিভাবে নিজের শরীর-স্বাস্থ্য সুস্থ রাখেন তিনি

Read More »
Facebook
Twitter
LinkedIn
WhatsApp
Email
Print

দেশের মুসলিমদের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে অহংকারী প্রধানমন্ত্রীকে

অমর্ত্য সেনের বোমা

৩৬৫ দিন। এতদিনে আমেরিকায় ছিলেন। কয়েকদিন হল শান্তিনিকেতনে ফিরেছেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। কোন সাক্ষাৎকার দিতে রাজি নন তিনি। তবে খোলামেলা কথা বলছিলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। রবিবার আমাদের প্রতিনিধিকে নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন জানালেন, ভারতের ২০ কোটি মুসলমানকে অপমান কেন্দ্রের মোদি সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ক্ষমা চাইতে হবে এর জন্য। এভাবেই নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানালেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত‍্য সেন। মোদিকে 'অহংকারী' বলে উল্লেখ করে অমর্ত‍্য বলেন, মোদি নিজেকে ঈশ্বরের দূত বলছেন। আমার তো মনে হয় উনি হয় একজন মেগ্যালোম্যানিয়াক। না হয় সম্পূর্ণ ভ্রমে রয়েছেন। না হলে একজন প্রধানমন্ত্রী এই রকম বলতে পারেন নাকি ! ভোট পর্বে মোদি বার বার মুসলমানদের আক্রমণ করেছেন। বিভাজনের রাজনীতি করেছেন। সাক্ষাতকারে এই নিয়েও তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি। অমর্ত‍্য বলেন, 'দেশের ২০ কোটি মুসলিম নাগরিককে অসম্মান করে রেহাই পাবেন না প্রধানমন্ত্রী। তিনি আমাদের সকলকে অসম্মান করেছেন। তাঁর মন্তব্যে তাঁর সংকীর্ণ মানসিকতার পরিচয় স্পষ্ট। ভারত সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর এমন চিন্তাভাবনা যথেষ্ট উদ্বেগের।' তাঁর মতে, মোদি ভারতের যে বহুত্ববাদ, সর্বধর্মসমন্বয় তাকে আঘাত করেছেন। এই সংস্কৃতিকে পাল্টে দিতে চাইছেন। এর বিরুদ্ধে মানুষ রায় দিয়েছেন। ভাজপা যে একক ভাবে সংখ‍্যাগরিষ্ঠতা পেল না এটা হল তার-ই ফল। বিভাজনের রাজনীতি সাধারণ মানুষ পছন্দ করেন না। মোদি যদি নিজের অহং বোধ ত‍্যাগ না করেন তাহলে তা ভাজপার ভরাডুবি ঘটাবে। বিরোধীদের প্রতি প্রতিহিংসামূলক আচরণের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রে শুধু শাসক হলেই হয় না। বিরোধী দলের সঙ্গে সমন্বয় রেখে চলাটাও দায়িত্ব। মোদি সে সব কিছুই করেন না। সংসদের বাইরে তো কথাই নেই ভেতরেও অত‍্যন্ত দাম্ভিকের মত আচরণ করেন। এতে দেশের সামগ্রিক বিকাশ হয় না। একনায়কতন্ত্র মনোভাব নিয়ে চললে পতন অবশ‍্যম্ভাবী। অমর্ত‍্য বলেন, 'ভারত যে হিন্দুরাষ্ট্র নয়, ভোটের ফলাফলে সেটাই স্পষ্ট করে দিয়েছে দেশের জনগণ।'রামমন্দির নিয়েও খোঁচা দিয়েছেন তিনি। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন,' রামমন্দির নির্মাণ করা হয়েছে বহু টাকা খরচ করে। কিন্তু এতে দেশের লাভ কি হবে ! রামমন্দির শুধুমাত্র হিন্দুত্বকে সামনে রেখে তৈরী করা হয়েছে। নতুন যে সরকার হয়েছে তা নিয়ে একেবারেই আশাবাদী নন অমর্ত‍্য। তিনি বলেন, 'ধনীদের উপর নির্ভরশীলতা বেশি এবং দরিদ্রদের অবহেলার প্রথা বহু দিন ধরেই এই সরকারে চলছে। যে মন্ত্রিসভা হয়েছে, তা আগের মন্ত্রিসভার মতোই। মন্ত্রীরা সব একই। একটু রদবদল হলেও, রাজনৈতিক ভাবে যাঁরা শক্তিশালী, তাঁরা এখনও শক্তিশালীই।'।করেছেন, মোদিকে ক্ষমা চাইতে হবে - দ‍্য ওয়ার'কে দেওয়া সাক্ষাতকারে প্রধানমন্ত্রীকে তীব্র আক্রমণ নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত‍্য সেনের। মোদিকে 'অহংকারী' বলে উল্লেখ করে অমর্ত‍্য বলেন, মোদি নিজেকে ঈশ্বরের দূত বলছেন। আমার তো মনে হয় উনি হয় একজন মেগ্যালোম্যানিয়াক। না হয় সম্পূর্ণ ভ্রমে রয়েছেন। না হলে একজন প্রধানমন্ত্রী এই রকম বলতে পারেন নাকি ! ভোট পর্বে মোদি বার বার মুসলমানদের আক্রমণ করেছেন। বিভাজনের রাজনীতি করেছেন। সাক্ষাতকারে এই নিয়েও তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি। অমর্ত‍্য বলেন, 'দেশের ২০ কোটি মুসলিম নাগরিককে অসম্মান করে রেহাই পাবেন না প্রধানমন্ত্রী। তিনি আমাদের সকলকে অসম্মান করেছেন। তাঁর মন্তব্যে তাঁর সংকীর্ণ মানসিকতার পরিচয় স্পষ্ট। ভারত সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর এমন চিন্তাভাবনা যথেষ্ট উদ্বেগের।' তাঁর মতে, মোদি ভারতের যে বহুত্ববাদ, সর্বধর্মসমন্বয় তাকে আঘাত করেছেন। এই সংস্কৃতিকে পাল্টে দিতে চাইছেন। এর বিরুদ্ধে মানুষ রায় দিয়েছেন। ভাজপা যে একক ভাবে সংখ‍্যাগরিষ্ঠতা পেল না এটা হল তার-ই ফল। বিভাজনের রাজনীতি সাধারণ মানুষ পছন্দ করেন না। মোদি যদি নিজের অহং বোধ ত‍্যাগ না করেন তাহলে তা ভাজপার ভরাডুবি ঘটাবে। বিরোধীদের প্রতপ্রতিহিংসামূলক আচরণের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রে শুধু শাসক হলেই হয় না। বিরোধী দলের সঙ্গে সমন্বয় রেখে চলাটাও দায়িত্ব। মোদি সে সব কিছুই করেন না। সংসদের বাইরে তো কথাই নেই ভেতরেও অত‍্যন্ত দাম্ভিকের মত আচরণ করেন। এতে দেশের সামগ্রিক বিকাশ হয় না। একনায়কতন্ত্র মনোভাব নিয়ে চললে পতন অবশ‍্যম্ভাবী। অমর্ত‍্য বলেন, 'ভারত যে হিন্দুরাষ্ট্র নয়, ভোটের ফলাফলে সেটাই স্পষ্ট করে দিয়েছে দেশের জনগণ।' রামমন্দির নিয়েও খোঁচা দিয়েছেন তিনি। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন,' রামমন্দির নির্মাণ করা হয়েছে বহু টাকা খরচ করে। কিন্তু এতে দেশের লাভ কি হবে ! রামমন্দির শুধুমাত্র হিন্দুত্বকে সামনে রেখে তৈরী করা হয়েছে। নতুন যে সরকার হয়েছে তা নিয়ে একেবারেই আশাবাদী নন অমর্ত‍্য। তিনি বলেন, 'ধনীদের উপর নির্ভরশীলতা বেশি এবং দরিদ্রদের অবহেলার প্রথা বহু দিন ধরেই এই সরকারে চলছে। যে মন্ত্রিসভা হয়েছে, তা আগের মন্ত্রিসভার মতোই। মন্ত্রীরা সব একই। একটু রদবদল হলেও, রাজনৈতিক ভাবে যাঁরা শক্তিশালী, তাঁরা এখনও শক্তিশালীই।' ি

Scroll to Top